বাংলাদেশের গ্রুপে ভারত ও কাতারড্রয়ের পর কে কোন গ্রুপে পড়েছে

খেলা ডেস্ক:-

বিশ্বকাপ ও এশিয়ান কাপ বাছাইপর্বে তুলনামূলক সহজ গ্রুপে পড়েছে বাংলাদেশ। গ্রুপ ‘ই’তে বাংলাদেশের অন্যতম প্রতিপক্ষ ভারত। গ্রুপের অন্যান্য দেশগুলো হচ্ছে, আফগানিস্তান, কাতার ও ওমান। গতকাল মালয়েশিয়ার কুয়ালালামপুরে এশিয়ান ফুটবল কনফেডারেশনের (এএফসি) প্রধান কার্যালয়ে ৮ গ্রুপের ড্র অনুষ্ঠিত হয়। এশিয়ার ৪০টি দেশকে পাঁচটি পটে ভাগ করে এই ড্র অনুষ্ঠিত হয়। বাংলাদেশের গ্রুপে পট-১ থেকে পড়েছে ২০২২ বিশ্বকাপের আয়োজক কাতার। পট-২ থেকে ওমান। পট-৩ ও পট-৪ থেকে যথাক্রমে আছে দুই দক্ষিণ এশীয় প্রতিদ্বন্ধী ভারত ও আফগানিস্তান।

১৯৮৬ মেক্সিকো বিশ্বকাপ বাছাইয়ের (১৯৮৫) পর এই প্রথম বাংলাদেশ গ্রুপসঙ্গী হিসেবে ভারতকে পেল। আগামী ৫ই সেপ্টেম্বর থেকে এই পর্বের খেলাগুলো শুরু হবে হোম ও অ্যাওয়ে ভিত্তিতে। চলবে ২০২০ সালের ৯ই জুন পর্যন্ত।
আট গ্রুপের আট চ্যাম্পিয়ন ও শীর্ষ চার রানার্স আপ নিয়ে বিশ্বকাপ বাছাইয়ের তৃতীয় পর্ব অনুষ্ঠিত হবে। কাতার সরাসরি বিশ্বকাপ খেলায় তারা থাকবে হিসাবের বাইরে। অর্থাৎ কাতার যদি নিজেদের গ্রুপ থেকে শীর্ষ স্থান অর্জনও করে এই গ্রুপ, এরপরও ‘ই’ গ্রুপ থেকে দ্বিতীয় হওয়া দল সরাসরি উঠে যাবে পরের রাউন্ডে। দ্বিতীয় পর্ব উতরানো মোট ১২ দলের ২০২৩ চীন এশিয়া কাপেও খেলা নিশ্চিত হবে। আর তৃতীয় পর্বের বিশ্বকাপ বাছাইয়ে ৬ দলকে আলাদা করে ভাগ করা হবে দুই গ্রুপে। দুই গ্রুপ থেকে চারটি দল খেলবে বিশ্বকাপে। আর দ্বিতীয় পর্ব পেরুতে না পারা দেশগুলো অংশ নেবে এশিয়া কাপ বাছাই পর্বের অন্যান্য ধাপে। বাছাই পর্বের ড্রয়ে মজার বিষয় হচ্ছে, ইরাক এবং ইরান পড়েছে একই গ্রুপে। সি গ্রুপে লড়াই করবে তারা। এছাড়া উত্তর কোরিয়া এবং দক্ষিণ কোরিয়াও পড়েছে একই গ্রুপে। তারা লড়বে এইচ গ্রুপে। বাংলাদেশের জন্য গ্রুপটা খুব বেশি কঠিন হয়নি। কাতারের সঙ্গে বাংলাদেশ খেলেছে মোট তিনবার। ১৯৭৯ সালে প্রথমবার কাতারের মুখোমুখি হয়ে সেবার ড্র করেছিল বাংলাদেশ। বাকি দুইবারই বাংলাদেশকে হারতে হয়েছে বড় ব্যবধানে। ভারত আর বাংলাদেশ একে অপরের বিপরীতে খেলেছে মোট ২৮ বার। এর মধ্যে ভারতই জিতেছে ১৫ বার। ভারতের সঙ্গে সবশেষ দুই দেখায় অবশ্য অপরাজিত ছিল বাংলাদেশ। ২০১৪ সালে আন্তজার্তিক প্রীতি ম্যাচে ২-২ গোলে ড্র হয়েছিল দুই দলের সবশেষে ম্যাচ।
গতবার অবশ্য তুলনামূলক আরও কঠিন গ্রুপে পড়েছিল বাংলাদেশ। অস্ট্রেলিয়া, তাজিকিস্তান, কিরগিজস্তান, জর্ডানের সঙ্গে সব মিলিয়ে ৮ ম্যাচ খেলে মাত্র একটি পয়েন্ট অর্জন করতে পেরেছিল লাল সবুজের দল। সে তুলনায় এবারের ড্রকে সহজ বলার উপায় না থাকলেও প্রতিপক্ষ দলগুলো বাংলাদেশের পরিচিতই। সাফ ফুটবলের কল্যাণে ভারত ও আফগানিস্তানের সঙ্গে নিয়মিতই দেখা হয়েছে বাংলাদেশের। এসব ম্যাচে সামপ্রতিক পারফরম্যান্স অবশ্য বাংলাদেশের পক্ষে নেই।

এ গ্রুপ : চীন, সিরিয়া, ফিলিফাইন, মালদ্বীপ এবং গুয়াম।
বি গ্রুপ : অস্ট্রেলিয়া, জর্ডান, চাইনিজ তাইপে, কুয়েত, নেপাল।
সি গ্রুপ : ইরান, ইরাক, বাহরাইন, হংকং, কম্বোডিয়া।
ডি গ্রুপ : সৌদি আরব, উজবেকিস্তান, ফিলিস্তিন, ইয়েমেন, সিঙ্গাপুর।
ই গ্রুপ : বাংলাদেশ, ওমান, ভারত, আফগানিস্তান, কাতার।
এফ গ্রুপ : জাপান, কিরগিজস্তান, তাজিকিস্তান, মায়ানমার, মঙ্গোলিয়া।
জি গ্রুপ : আরব আমিরাত, ভিয়েতনাম, থাইল্যান্ড, মালয়েশিয়া, ইন্দোনেশিয়া।
এইচ গ্রুপ : দক্ষিণ কোরিয়া, লেবানন, উত্তর কোরিয়া, তুর্কমেনিস্তান, শ্রীলংকা।

বিশ্বকাপ বাছাইয়ে বাংলাদেশের ম্যাচগুলো
তারিখ    প্রতিপক্ষ    ভেন্যু
১০ সেপ্টেম্বর     আফগানিস্তান-বাংলাদেশ    অ্যাওয়ে
১০ অক্টোবর     বাংলাদেশ-কাতার     হোম
১৫ অক্টোবর     ভারত – বাংলাদেশ    অ্যাওয়ে
১৪ নভেম্বর     ওমান- বাংলাদেশ     অ্যাওয়ে
২৬ মার্চ     বাংলাদেশ-আফগানিস্তান    হোম
৩১ মার্চ     কাতার-বাংলাদেশ     অ্যাওয়ে
৪ এপ্রিল     বাংলাদেশ-ভারত     হোম
৯ জুন     বাংলাদেশ-ওমান     হোম
(আফগানিস্তানের হোম ভেন্যু কোনটা এখনো চূড়ান্ত হয়নি)

 

Leave a Comment